বুধবার ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   বুধবার ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ব্রেকিং নিউজঃ
বাগেরহাটের মোল্লাহাটে ২০২১-২২ অর্থ বছরের দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্প অনুষ্... ঈদে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরতে চায় চালকেরা। উখিয়ায় স্পেশালাইজড হসপিটাল উদ্বোধন করলেন ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার এনামুর রহমান গরু কিনছেন রোহিঙ্গারা উখিয়া-টেকনাফের ক্যাম্পের পাশে পশুর হাট ১৬ মাসে ২০ লাখ ইয়াবাসহ ২৪৯ অস্ত্র উদ্ধার,আটক-৯৭২। মোংলায় ২৮৪ জন বনদস্যুকে ঈদ উপহার দিলো র‌্যাব-৮। প্রেস ক্লাবের সামনে নিজের শরীরে আগুন দেয়া গাজী আনিস মারা গেছেন ব্যবসায়ী আলমগীর হত্যা মামলায় লক্ষ্মীপুরে দু’জনের মৃত্যুদণ্ড টাকা আত্মসাতের মামলায় লক্ষীপুরে ইউপি চেয়ারম্যান ইউছুফ ছৈয়াল কারাগারে লক্ষ্মীপুরে নিম্নমানের বীজ বিক্রির দায়ে মাসুদ বীজ ভান্ডারের জরিমানা
ন্যায়বিচার চেয়ে পুলিশের হ্যাশট্যাগ।
শেখ রাসেল, ঢাকা প্রতিনিধি।
প্রকাশ: ১৮ ডিসেম্বর, ২০২১, ১১:৩৯ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

ন্যায়বিচার চেয়ে পুলিশের হ্যাশট্যাগ।

নিউজ ডেস্কঃ  জাস্টিস ফর মহুয়া। জাস্টিস ফর ফাদার।’ ফেসবুকে ন্যায়বিচার চেয়ে এমন হ্যাশট্যাগ দিয়ে স্ট্যাটাস দিচ্ছে ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগের পুলিশ সদস্যরা। পোস্টের সঙ্গে দেখা যাবে মহুয়া হাজং ও তার বাবার একটি ছবি। তাদের কেউ মহুয়ার সহকর্মী, কেউ সমব্যথী। মহুয়ার জন্য ন্যায়বিচার চাওয়ার পোস্টের মন্তব্যে অনেক সাধারণ মানুষকেও ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত সনেট শিকদার নামে একজন পুলিশ সার্জেন্ট তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘ন্যায়ের পক্ষে কথা বলার শক্তিটুকু আগেও ছিল, ভবিষ্যতেও থাকবে ইনশাল্লাহ। আমি আমার অবস্থানটা পরিষ্কার করলাম। একজন সহকর্মী, একজন ভাই হিসেবে আমি মহুয়ার পাশে আছি। একজন সন্তান হিসেবে আমি একজন পিতার সঙ্গে হওয়া অন্যায়ের বিচার চাই। থানায় কেন মামলা নেওয়া হলো না তার সুস্পষ্ট ব্যাখ্যাও চাই।’

১৫ ডিসেম্বর দেওয়া তার এই স্ট্যাটাস একাধিকবার শেয়ার হয়েছে এবং অনেকেই মন্তব্য করেছেন। জুয়েল মাহমুদ নামে একজন কনস্টেবল মন্তব্য করেছেন,আমরা নিজেরাই নিজেদের কাছে খুব অসহায়।’

হোসেইন আবিদ নামের একজন মন্তব্য করেছেন, ‘ক্ষমতার বিপরীতে একজন পুলিশের পরিবারের সঙ্গে এমন হলে সেখানে জনগণের অবস্থা ডাল-ভাত, এটা সবার জানা কথা।’

তিনি আরও লেখেন, ‘ভিআইপি পরিবারের সালমান খানগুলো দুষ্ট পানি খেয়ে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটিয়ে যাবে। আর আমরা বিচার চাই বলে জোর আওয়াজ তুলবো, ততক্ষণে বেগম পাড়ার উদ্দেশ্যে ফ্লাইট ছেড়ে যাবে।’

মাসুম বিল্লাহ নামে অপর একজন সার্জেন্ট সনেটের দেওয়া স্ট্যাটাসে মন্তব্য করেছেন, ‘একজন পুলিশ সদস্য নিজেই বিচারের দাবিতে পুলিশের দরজায় ঘুরবে, তা কী করে হয়!’

সাবাব এম আলী নামে একজন লিখেছেন, ‘ন্যায়বিচারের একটা প্লেট জাদুঘরে সাজিয়ে রাখার দিন এসে গেছে। কারণ এটা বিলুপ্তপ্রায়।’ মো. আতিকুর রহমান লিখেছেন, ‘সাধারণ জনগণ হিসেবে আমিও পাশে আছি।’ সার্জেন্ট সনেট শিকদারের স্ট্যাটাসে একমত পোষণ করে মন্তব্য করেছেন সার্জেন্ট তানজিলা পিয়াস।

মহুয়া ও তার বাবার একটি ছবি পোস্ট করে স্ট্যাটাস দিয়েছেন পান্না আক্তার নামে ডিএমপির অপর এক সার্জেন্ট। ছবিটিতে হ্যাশট্যাগ দিয়ে লেখা হয়েছে, ‘স্টে উইথ মহুয়া। ‘আমি ও আমরা ন্যায়বিচার প্রত্যাশী।’

পান্না আক্তারের স্ট্যাটাসেও ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন। মো. কামরুল হাসান নামের একজন লিখেছেন, ‘এটার জন্য পুলিশ কর্মকর্তারা দায়ী। কারণ তারা ভোগে। তাই নিজের প্রতি নিজেরাই অবিচার করে। এর জন্য কর্মকর্তারা দায়ী। সাধারণ সিপাহি থেকে এসআই পর্যন্ত কেউই থানায় গিয়ে ওসি সাহেবদের কাছে বিচার পায় না। এর জন্য বিভাগীয় প্রধান ডিআইজি স্যারের কাছে যেতে হয়। আপনি থানার একজন ওসি। আপনার কাজ মামলা নেওয়া। আপনি মামলা না নিয়ে উল্টো পুলিশ সদস্যদের বকাঝকা করেন। ভয় দেখান। এটা ঠিক না। সবার ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে।’

মো. সিদ্দিক নামে একজন পুলিশ সদস্য লিখেছেন, ‘এর বিচার চাই। অবিলম্বে তাকে আইনের আওতায় আনতে হবে।’

মিজানুর রহমান নামে একজন জানতে চেয়ে লিখেছেন, ‘যদি আপনারা ন্যায়বিচারের জন্য আন্দোলন করেন, তাহলে আমরা সাধারণ জনগণ কী করবো?’

গত ২ ডিসেম্বর রাজধানীর বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি সড়কে একটি দ্রুতগতির গাড়ির চাপায় আহত হন সার্জেন্ট মহুয়ার বাবা মনোরঞ্জন হাজং। তাকে উদ্ধার করে শ্যামলীর পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়া হয়। গুরুতর অবস্থার কারণে অস্ত্রোপচার করে তার ডান পা কেটে ফেলতে হয়েছে। এরপর শাহবাগের বারডেম হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় তাকে।

সড়ক দুর্ঘটনায় আহত মনোরঞ্জন হাজং বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) অবসরপ্রাপ্ত হাবিলদার। তার মেয়ে মহুয়া হাজং ট্রাফিক সার্জেন্ট হিসেবে ডিএমপিতে কর্মরত। দুর্ঘটনার পর তিনি থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ প্রথমে মামলা নেয়নি। এমনকি ঘটনার পর পথচারীরা চাপা দেওয়া সেই গাড়ি ও চালকসহ অন্য যাত্রীদের আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিলেও তারা ছাড়া পেয়ে যায়।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, দুর্ঘটনার সময় গাড়িতে চালকের আসনে ছিলেন বিচারপতি রেজাউল হাসানের ছেলে সাইফ হাসান। তার স্ত্রী অন্তরা সাইফ আর বন্ধু রোয়াদও গাড়িতে ছিলেন। দুর্ঘটনার পরই প্রভাবশালীদের চাপে গাড়ি ও এর যাত্রীদের ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় পুলিশ। একইসঙ্গে তারা মহুয়া হাজংয়ের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আপসের চেষ্টাও চালায়। কিন্তু মহুয়া হাজং মামলার বিষয়ে অটল থাকায় এবং গণমাধ্যমে এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। আইনি ব্যবস্থা না নেওয়ায় অনেক পুলিশ কর্মকর্তাও ক্ষুব্ধ হন।

পরে বনানী থানা মহুয়া হাজংয়ের মামলাটি এজাহার হিসেবে গ্রহণ করলেও আসামিদের অজ্ঞাতনামা দেখানো হয়। এজাহারে সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮-এর ৯৮ ও ১০৫ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

৯৮ ধারায় বেপরোয়া গতি ও নিয়ন্ত্রণহীনভাবে গাড়ি চালানোর অপরাধে চালকের অনধিক তিন বছরের কারাদণ্ড বা অনধিক ৩ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে। ১০৫ ধারা অনুযায়ী দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত বা মারা গেলে অনধিক পাঁচ বছরের কারাদণ্ড বা ৫ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান আছে।

এদিকে মামলা নিয়ে মুখ খুলেও চাপে পড়েছেন মহুয়া হাজং। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাকে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে মৌখিকভাবে নিষেধ করেছেন বলে জানা গেছে।

বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আজম মিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দুর্ঘটনায় মামলা হয়েছে। এ বিষয়ে কাজ করছি। তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Share Button




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

This image has an empty alt attribute; its file name is add-1-1024x672.jpg

সর্বাধিক পঠিত

  • প্রধান উপদেষ্টাঃ শাহজাদা পারভেজ টিনু।
    আইন উপদেষ্টাঃ এ্যাড আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ
    (জজকোর্ড ঢাকা)
    সম্পাদক ও প্রকাশক: এইচ এম মোহিবুল্লাহ (মোহিব)
    নির্বাহী সম্পাদকঃ মো: মোস্তাফিজুর রহমান।
    ব্যবস্থাপনা পরিচালক: নূর-ই আলম আজাদ।
    যুগ্ন সম্পাদকঃ আমিনুর রহমান রুবেল ও এস এম আমিনুল ইসলাম।
    সাহিত্য সম্পাদকঃ খলিলুর রহমান তাং ও ইউসুফ আলী তাং।
    বার্তা সম্পাদক : এস এম আওলাদ হোসেন।

অফিসঃ
ঢাকাঃ সুলতান টাওয়ার (৩য় তলা) টংঙ্গী বাজার, গাজিপুর, ঢাকা।
বরিশালঃ ৩৪৫ সিটি প্লাজা ৩য় তলা ,ফজলুল হক এভিনিউ বরিশাল।
কলাপাড়াঃ মমতা মার্কেট,বাদুড় তলী সূইজগেট,কলাপাড়া,পটুয়াখালী।
E-mail: somoynewskp@gmail.com
মোবাইলঃ 01721987722

Design & Developed by
  বাগেরহাটের মোল্লাহাটে ২০২১-২২ অর্থ বছরের দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্প অনুষ্ঠিত।   ঈদে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরতে চায় চালকেরা।   উখিয়ায় স্পেশালাইজড হসপিটাল উদ্বোধন করলেন ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার এনামুর রহমান   গরু কিনছেন রোহিঙ্গারা উখিয়া-টেকনাফের ক্যাম্পের পাশে পশুর হাট   ১৬ মাসে ২০ লাখ ইয়াবাসহ ২৪৯ অস্ত্র উদ্ধার,আটক-৯৭২।   মোংলায় ২৮৪ জন বনদস্যুকে ঈদ উপহার দিলো র‌্যাব-৮।   ঢাকায় ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলামের উপর হামলা   ৭ জুলাই থেকে গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র সংগ্রহ শুরু।   ঈদের নামাজ পড়তে যাব না- ডক্টর জাফরুল্লাহ চৌধুরী!!   সময় কাটাতে পত্রিকা পড়ছেন-তাস খেলছেন টিকিট প্রত্যাশীরা।   ছাত্রলীগ নেত্রীকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের কুপ্রস্তাবের অভিযোগ।   রাজধানীর গোলাববাগ অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি।   এস এস সি পরীক্ষা শুরু হবে আগামী আগস্টে…আন্তঃবোর্ড।   দাকোপ উপজেলায় ওয়ার্ল্ড ভিশন বিএইচএ প্রকল্প কর্তৃক দুর্যোগ কালীন প্রাথমিক চিকিৎসা সরঞ্জামাদি বিতরণ।   কলাপাড়ায় বেড়িবাঁধ নির্মানে মাটির বদলে দেয়া হচ্ছে বালু, ডিজাইন মাফিক করা হচ্ছেনা কান্ট্রিসাইটের পরিমাপ।।   ছাত্র সমাজের অধঃপতনের মূল কারণ হচ্ছে অপসংস্কৃতি।   অবরোধ উপেক্ষা করে বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকারের মহোৎসব, নিরব প্রশাসন!!    কলাপাড়ায় পায়রা ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন’র উদ্যোগে সন্মাননা প্রদান।।   উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ৮ লাখ টাকা ও ইয়াবাসহ নারী গ্রেফতার।   শিক্ষককে হত্যা ও নিপীড়নের প্রতিবাদে জবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন।