রবিবার ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   রবিবার ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ব্রেকিং নিউজঃ
লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে বিট পুলিশিং এর মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় বৃদ্ধ কৃষককে পিটিয়ে জখম আমার বরাদ্ধের জন্য কেউ টাকা চাইলে দিবেন না,.....এডঃ নুরউদ্দীন চৌধুরী এমপি। টেকনাফে পাহাড়ি ছড়া থেকে বন্য হাতির মরদেহ উদ্ধার মানিকছড়িতে মদ্যপ যুবককে ৩মাসের কারাদন্ড ময়মনসিংহে ডিবির অভিযানে ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত ট্রাক ও অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৬ ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত পটুয়াখালীর কলাপাড়া গ্রাম পুলিশ সদস্যকে হয়রানির অভিযোগ বিদ্যালয়ে রাতে উড়ল জাতীয় পতাকা, প্রধান শিক্ষককে শোকজ লক্ষ্মীপুরে ইউপি সদস্য সিএনজি ও অটো রিকশা চালকদের স্বেচ্চাশ্রমে সড়ক  সংস্কার
৪০২৭ শিক্ষকই ছুটিতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের !
প্রকাশ: ৯ জানুয়ারি, ২০২১, ৯:১২ পূর্বাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

৪০২৭ শিক্ষকই ছুটিতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের !

সময় নিউজ বিডিঃ  দেশের ৪৩ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক আছেন ১৫ হাজার ২৯৩ জন। তাদের মধ্যে ৪ হাজার ২৭ জন অন্তত ৫ ধরনের ছুটিতে আছেন। এটা মোট শিক্ষকের ২৬ শতাংশের বেশি। ১ বছরের মধ্যে এ হার বেড়েছে প্রায় আড়াই শতাংশ। আর গত ৩ বছরে ছুটি নেয়ার হার মোট বেড়েছে সাড়ে ৫ শতাংশ। পাশাপাশি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন চাকরির প্রবণতা বেড়েছে এসব শিক্ষকের। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সর্বশেষ তিনটি বার্ষিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, বড় কয়েকটি বাদে বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে শিক্ষক সংকট। বিশেষ করে ঢাকার বাইরে অপেক্ষাকৃত নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ে সিনিয়র শিক্ষকের সংকট বেশি। বিজ্ঞপ্তি দিয়েও ওইসব বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপক পাওয়া যাচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতে জুনিয়র শিক্ষক দিয়েই চলছে সেখানকার লেখাপড়া। এর মধ্যে আবার শিক্ষকদের বিভিন্ন ধরনের ছুটিতে যাওয়ায় লেখাপড়া ও গবেষণার ওপর প্রভাব ফেলছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ মঙ্গলবার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা আর ছুটি অনেকটা সমর্থক হিসাবে ধরা যায়। তবে এ ছুটিটা হচ্ছে গবেষণা বা উচ্চশিক্ষার ছুটি। এতে শিক্ষকের জ্ঞানের পরিধি বাড়ে। কিন্তু সমস্যা হয় যখন ভারসাম্য রক্ষা করে ছুটি মঞ্জুর করা না হয়। এখন একটি বিভাগ যদি একই বছরে তিন শিক্ষককে ছুটি দেন তাহলে শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে এ ক্ষেত্রে ছুটির বিপরীতে নিয়োগের বিধান আছে। বিভাগে পদ থাকলে নিয়োগ করা যায়।

তিনি বলেন, আরেকটা সমস্যা হচ্ছে- উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে যাওয়া কেউ কেউ সময়মতো ফিরতে পারেন না। এজন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অধ্যাদেশে নির্দেশিত পন্থায় ব্যবস্থা নিয়ে থাকে। এছাড়া শিক্ষকরা আরও কিছু ছুটি নিয়ে থাকেন। এরমধ্যে লিয়েন, প্রেষণ ইত্যাদি আছে। তবে জাতীয় প্রয়োজনে লিয়েনসহ অন্যান্য ছুটি নিয়ে শিক্ষকরা বিভিন্ন সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে যুক্ত হন। ঢাকার বাইরে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকের সংকট আছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ঢাকার বাইরে সিনিয়র শিক্ষকের সংকট পূরণে উদ্যোগ নেয়া হবে।

গত সপ্তাহে রাষ্ট্রপতির কাছে পেশ করা হয় ইউজিসির সর্বশেষ (২০১৯ সালের) বার্ষিক প্রতিবেদন। এতে বলা হয়, ৪৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪ হাজার ২৭ শিক্ষক অন্তত ৫ ধরনের ছুটিতে ছিলেন। এসব শিক্ষকের মধ্যে ২২৬৪ জন আছেন শিক্ষা ছুটিতে। ২০১৮ সালে এ সংখ্যা ছিল ২১৩৩। প্রেষণ বা লিয়েন নিয়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে প্রতিবেদনের বছরে আছেন ৭৮ জন। আগের বছরের চেয়ে এ ক্ষেত্রে সংখ্যা বেড়েছে ৮ জন। এছাড়া বিনা বেতনে ছুটিতে আছেন ৬৫ জন আর ছুটি শেষ হওয়ার পরও অননুমোদিতভাবে বিদেশে অবস্থান করছেন ১৩ জন। এ সংখ্যা গত বছর ছিল যথাক্রমে ৭০ জন ও ২৫ জন। খণ্ডকালীন বা চুক্তিভিত্তিক নিয়োগে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন ১৬১৯ জন। এবছরে এ সংখ্যা বেড়েছে ৫২২ জন। গত বছর এ ছুটিতে ছিলেন ১০৯৭ জন। ২০১৮ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী মোট শিক্ষকের ২৪ শতাংশই ছিলেন ছুটিতে।

বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে, সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে এনজিও ব্যবসা, বিদেশি সংস্থায় পরামর্শকসহ বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে খণ্ডকালীন কাজ করছেন আরও ৫ শতাধিক। বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন অধ্যাপনা করছেন ৪ হাজার ২০৯ জন। সাধারণত এসব শিক্ষকের বেশিরভাগই কোনো রকমে ক্লাস নিয়ে ক্যাম্পাসে বাইরে ছুটে যান। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলাপে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে পেশ করা ২০১৭ সালের বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৩৭টি সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ২১ শতাংশ শিক্ষকই আছেন শিক্ষা কার্যক্রমের বাইরে। এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে ২ হাজার ৯৪০ শিক্ষক অন্তত ৫ ধরনের ছুটিতে ছিলেন। এর মধ্যে ২১০১ জন শিক্ষাছুটিতে, প্রেষণ বা লিয়েনে ৮৪ জন, বিনা বেতনে ছুটিতে আছেন ৫৮ জন, অননুমোদিত ছুটিতে ১৭ জন এবং খণ্ডকালীন বা চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ নিয়েছেন ৬৮০ জন।

এদিকে খণ্ডকালীন বা চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকের ব্যাপারে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইউজিসিকে দেয়া তথ্যের সঙ্গে মিল নেই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সরবরাহকৃত তথ্যে। ইউজিসির উল্লিখিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১০২টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪ হাজার ২০৯ শিক্ষক খণ্ডকালীন চাকরি করছেন। তাদের মধ্যে ১৩০৮ জনই অধ্যাপক। এছাড়া সহযোগী অধ্যাপক ৬০৩ জন, ৭৪৩ জন সহকারী অধ্যাপক এবং ১৩২৮ জন প্রভাষক। অন্যান্য ধরনের খণ্ডকালীন শিক্ষক আছেন ২২৭ জন। সংশ্লিষ্টরা জানান, খণ্ডকালীন শিক্ষকের বেশিরভাগই বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভাড়া করা। অথচ ইউজিসির প্রতিবেদনে এ সংখ্যা উল্লেখ করা হয়েছে ১০৯৭ জন। গত বছর বা ২০১৮ সালে এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ৪ হাজার ১৪৫ শিক্ষক ছিলেন খণ্ডকালীন।

তবে বিগত ৩ বছরের প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন শিক্ষকের সংখ্যা কমেছে। ২০১৭ সালে ৯০টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪ হাজার ৭৩৩ শিক্ষক খণ্ডকালীন চাকরি করছেন। তাদের মধ্যে ১৬০৬ জনই অধ্যাপক। এছাড়া সহযোগী অধ্যাপক ৭৫৮ জন, ৯১৯ জন সহকারী অধ্যাপক এবং ১৪৫০ জন প্রভাষক।

জানা গেছে, প্রায় এক দশক আগে উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্প (হেকেপ) গ্রহণকালে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন চাকরি করা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ব্যাপারে একটি ডাটাবেজ তৈরির কথা ছিল। তাতে একজন শিক্ষক কতটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াচ্ছেন সেই তথ্য বের করার কথা ছিল। কিন্তু রহস্যজনক কারণে সেই কাক্সিক্ষত সফটওয়্যারই তৈরি করা হয়নি। ইতোমধ্যে প্রকল্পটি শেষ হয়ে গেছে।

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে আলাপে জানা গেছে, বর্তমানে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস নেয়ার বিষয়টি সবচেয়ে রমরমা। ঢাকার বাইরে একের পর এক বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠছে। ওইসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকের চাহিদা পূরণ হয়ে থাকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই। এ সুযোগের অপব্যবহার করে থাকেন অনেকে। যদিও করোনাকালে খণ্ডকালীন শিক্ষকতার বাজার মন্দা নেমে এসেছে বলে জানা গেছে।

Share Button




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

প্রধান উপদেষ্টাঃ শাহজাদা পারভেজ টিনু।
আইন উপদেষ্টাঃ এ্যাড আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ
(জজকোর্ড ঢাকা)
সম্পাদক ও প্রকাশক: এইচ এম মোহিবুল্লাহ (মোহিব)
নির্বাহী সম্পাদকঃ মো: মোস্তাফিজুর রহমান।
ব্যবস্থাপনা পরিচালক: নূর-ই আলম আজাদ।
যুগ্ন সম্পাদকঃ আমিনুর রহমান রুবেল ও এস এম আমিনুল ইসলাম।
সাহিত্য সম্পাদকঃ খলিলুর রহমান তাং ও ইউসুফ আলী তাং।
বার্তা সম্পাদক : মো: নূর হোসেন।

অফিসঃ
ঢাকাঃ সুলতান টাওয়ার (৩য় তলা) টংঙ্গী বাজার, গাজিপুর, ঢাকা।
বরিশালঃ ৩৪৫ সিটি প্লাজা ৩য় তলা ,ফজলুল হক এভিনিউ বরিশাল।
কলাপাড়াঃ মমতা মার্কেট,বাদুড় তলী সূইজগেট,কলাপাড়া,পটুয়াখালী।
E-mail: somoynewskp@gmail.com
মোবাইলঃ 01721987722

Design & Developed by
  লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে বিট পুলিশিং এর মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় বৃদ্ধ কৃষককে পিটিয়ে জখম   আমার বরাদ্ধের জন্য কেউ টাকা চাইলে দিবেন না,…..এডঃ নুরউদ্দীন চৌধুরী এমপি।   টেকনাফে পাহাড়ি ছড়া থেকে বন্য হাতির মরদেহ উদ্ধার   মানিকছড়িতে মদ্যপ যুবককে ৩মাসের কারাদন্ড   ময়মনসিংহে ডিবির অভিযানে ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত ট্রাক ও অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৬   ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত   পটুয়াখালীর কলাপাড়া গ্রাম পুলিশ সদস্যকে হয়রানির অভিযোগ   বিদ্যালয়ে রাতে উড়ল জাতীয় পতাকা, প্রধান শিক্ষককে শোকজ   লক্ষ্মীপুরে ইউপি সদস্য সিএনজি ও অটো রিকশা চালকদের স্বেচ্চাশ্রমে সড়ক  সংস্কার   টেকনাফে মাদকের চালান নিয়ে শিশুসহ রোহিঙ্গা নারী আটক   দোহাজারী-ঘুমধুম রেল প্রকল্প পরিদর্শনে রেলমন্ত্রী   প্রেমিকাকে চুরি করে ফোন দেওয়ায় জেনে গেল পরিবার । অতঃপর আত্মহত্যা   ভোলার রাজাপুরে ৩১ হাজার টাকাসহ ছয় জুয়ারি আটক   উখিয়ায় র‍্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত   লক্ষ্মীপুরে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা টিপু-বাবর সহ আহত ১৩, সড়কে যানজটে জনদুর্ভোগ।   ভোলার তজুমুদ্দিনে ১৮০পিছ ইয়াবা’সহ দুই মাদক ব্যাবসায়ী আটক।   ফকিরহাটে ইউপি নির্বাচনে সকল ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর জয়   কলাপাড়ায় নৌ পুলিশের পিটুনিতে জেলের মৃত্যু….. ৫ পুলিশ অবরুদ্ধ ।।   উখিয়ায় দেশীয় অবৈধ অস্ত্রসহ রোহিঙ্গা আটক